বাইরে ঝড় হচ্ছে, বাতাসের অসম্ভব রকমের ঝাপটা, খুব ইচ্ছা করছে ছাদে যেতে। যেহেতু একটা পাহাড়ের উপরের ৫ তলা বিল্ডিং এ থাকি, এত উচুতে ঝড়টা কেমন দেখতে মন চাইছে। ব্যালকনি তে যাবার চেষ্টা করলাম কিন্তু দরজাটা খুলতেই পারলাম না…!! বাতাসের চাপে। ছাদে যাবার সাহসও হলো না, সেদিন দেখলাম যমুনা ব্রিজ থেকে ঝড় ট্রেনের বগি উড়িয়ে নিয়েছে…! মনে করতেই দমে গেলাম। কি জানি, নিউজটা না জানা থাকলে উপরে উঠে যেতাম।।
না জানা থাকলে অনেক কাজ সহজ হয়, বিশেষ করে দুঃসাহসিক কাজ গুলো।। হুম, অভিজ্ঞতার Downside ও আছে তাহলে…!

প্রিয় ডায়েরী,
তিন দিনের ছুটিতে কলিগেরা সবাই ডরম ছেড়েছে। একটা বেশ আনন্দময় সময় কাটাচ্ছি। একা একা।। একা সময়টা আমার বেশ কাটে। বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন ছুটি হতো সবাই চলে গেলেও আমি একা হবার আনন্দে থেকে যেতাম, যখন সবাই চলে আসত ঝটপট বাসা থেকে ঘুরে আসতাম। একা, এই একা থাকাটার মজাটা অন্যরকম। এই যেমন এখানে অনেকেরই থাকার কথা ছিল কিন্তু নেই। এই নেই টা একটা শুন্যতা সৃষ্টি করে যেটা উপভোগ্য। এটা ঠিক যেন হরতালে ঢাকার রাস্তা…হা হা হা!

পিসিতে Bonnie Chakraborty র একটা গান বাজছে, নীল স্লিপিং পিলের রাত। তুমি গুছিয়ে কোন কথা বলতে পারনা, এই লাইনটায় বেশ অভিমান ঝড়ে পড়ছে। হুহ্‌

একটা সফটওয়ারের কাজ শিখছি। গতকাল থেকে ওটার পিছে লেগেছি। কিন্তু ঝামেলা হচ্ছে এটা অনেক বেশি ইন্ট্রিগেটেড। বাগে আনতে সময় লাগবে বলে মনে হচ্ছে।

সময়, এই সময় করাটাই টাফ। গানের লিরিকসের সাথে তাল মিলিয়ে বলতে ইচ্ছা করছে, শুধু সময় কি নিজের গল্প বলে যাবে? দূর।

গতকাল হঠাৎ ই মাথা ব্যাথা করছিলো, মেডিক্যালে গিয়ে বিপিটা মেপে দেখলাম কিছুটা বেশি। হাইপারটেনশন…! এই রোগটা আব্বু-র ছিলো। আমার ছিলো না। তবে খুব শর্ট একটা পিরিওডের টেনশনে জিন থেকে এটা বেরিয়ে পড়েছে। ওই পিরিওডটা ছিলো টেনশনের, সত্যিকারের টেনশন। ওই সময়টার দিকে থাকালে খুব অভিমান হয়। টেনশন না করেও সমস্যাটার সমাধান করা সম্ভব ছিলো, অন্তত সময় তো সমাধান দিত, দিয়েছেও…! তাহলে…! এই যে সত্যিকারের টেনশন বললাম, এটা ছিলো ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ। এখন অনেক পরিবর্তিত হয়েছি। এই পরিবর্তনটা বোধহয় দরকার ছিলো। প্রতিদান নয়, এতটুকু ইভালুয়েশনও যদি থাকতো…! Human life is interesting…!!

মেডিক্যালের ডাক্তারটা যখন দেখলো বিপি, জেরা শুরু করলো। হাসি মুখে উত্তর দিচ্ছিলাম তার প্রশ্নের। সে বললো, আপনারা পাহাড় পর্বত দিয়ে উঠা নামা করেন তাই বিপি একটু বাড়তেই পারে। আমি বললাম, তাই বুঝি? কিন্তু আমার তো হিস্ট্রি আছে…! সে বললো, তাহলে কিছু প্রিকশনস্‌ নিতে হবে, লবন খাওয়া যাবে না, এক্সারসাইজ করতে হবে…! আমি বললাম, এই যে পাহাড় পর্বতে সর্বদা উঠানামা করছি এটা কি এক্সারসাইজ না। সে একটু থতমত খেয়ে গেলো…! বললো- না, ফরমাল এক্সারসাইজ করতে হবে…! আমার প্রশ্ন করতে ইচ্ছা করছিলো, এই পাহাড় পর্বতে উঠানামার কারনে যদি বিপি বাড়ে তাহলে এক্সারসাইজ করলে এটা কমবে, কেনো, কিভাবে?
:), করলাম না। ইয়াং ডাক্তার। বিপদে পড়ে যেতে পারে…! মেডিক্যালে যখনই গিয়েছি সন্মোধন পেয়েছি, স্যার। কিন্তু মেয়েটিকে দেখলাম সে ভাব বাচ্যে কথা বলছে। বাসা কোথায় জিজ্ঞাসা করতে জানালো এই তো এখানেই, কুমিল্লাতে। সে পালটা কোশ্চেন করলো, আপনার বাসা কোথায়? বললাম ফরিদপুর, সাথে সাথেই চোখটা দেখলাম চকচক করে উঠলো তার। সে ফরিদপুর মেডিক্যালের ছাত্রী ছিলো।। এবার দেখলাম তার আগ্রহ, সে বললো অনেকটা সময় তার ফরিদপুর কেটেছে। সে ঝিলটুলিতে ই থাকতো। আমাদের বাসা সে চিনে। সে যে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেড়ে চলে যাচ্ছে বিসিএস পোস্টিং নিয়ে তাও গরগর করে জানালো। হা হা

প্রতিটি মানুষ এক একটা কোটর তৈরি করে তার মধ্যে বাস করে। এই কোটরে প্রবেশের জন্য দরজা থাকে, একাধিক। এর ভিতর অন্যতম একটা দরজার নাম, ভালোলাগা স্মৃতি। ফরিদপুরের নাম শোনার পর ডাক্তারটির চোখে সেই স্মৃতি দেখতে পেয়েছিলাম।
(1:45 am)

 

  

FB তে মন্তব্য করতে এখানে লিখুন (ব্লগে করতে নিচে) :

12 Responses to এই একা থাকার মরসুম, এই শেষ না হওয়া রাত, কত কথা মনে পরছে কতবার..

  • Anonymous says:

    পাহাড় পর্বত এ ওঠা নামা করলে যে বিপি বাড়ে , এক্সারসাইজ করলেও সেই বিপি বাড়ে ।
    এটা ঘটে মূলত বডি টেমপারেচার বেড়ে যাওয়ার কারনে রক্ত কনার গতি বেড়ে যায় সেজন্য ।
    তাই সিঁড়ি দিয়ে ওঠা নামা , এক্সারসাইজ এর পর পর ই বিপি মাপলে তুলনামূলক বেশি
    পাওয়া যায় ।
    কিন্তু রেগুলার এক্সারসাইজ বা ফরমাল এক্সারসাইজ বিপি কমায় মূলত রক্তে কোলেস্টেরল তথা লিপিড
    এর পরিমান কমিয়ে দিয়ে ।
    প্রশ্নটা করেই দেখতেন !!! এতটুকু বোঝানোর জন্য খুব বুড়ো ডাক্তার এর প্রয়োজন
    নেই বোধকরি ।

    • Fida Hasan says:

      You sounds like a FRCS dr. (Y)
      Actually, information sharing and convincing is not same thing, and I felt doubt whether she could made me convinced of that question otherwise it would quite embarrassing.

  • Anonymous says:

    হাহা.!! FRCS বলে প্রশংসা করলেন না ইন্সাল্ট ??
    :roll:
    এই ঘটনার জন্য যতটা না বায়োলজি তার চেয়ে বেশি কিন্তুক ফিজিক্স !!
    তাই ব্যাখ্যা করিতে ডাক্তার হওয়া বাঞ্ছনীয় নয়

  • Anonymous says:

    And by the way, if she somehow read this, it would be embarrassing too.

  • Anonymous says:

    নাহ , কি বুঝলেন ? বললাম যে এটা বোঝাতে ডাক্তার হওয়া বাঞ্ছনীয় না । FRCS তো দূর কি বাত……!!!!

    আপনি তার উপর ভরসা পাচ্ছিলেন না এটা সে এভাবে পাবলিকলি লেখা দেখলে এম্বারাসড হতে পারেন । তবে অবশ্য এটা প্রি কিংবা কারেন্ট এম্বারাসমেন্ট হবে না , হলে হবে পোস্ট এম্বারাস্মেন্ট । মানে যদি কখনো আপনাদের দেখা হয় সেদিন

    • Fida Hasan says:

      কি জানি…! হয়তো। অবশ্য আমার ব্রেনে অতটুকু ডাটাও ছিলো না। :neutral:

      বাংলাদেশের ডাক্তার-রা নাকি ডাক্তারী পড়তে গিয়ে তিনটা জিনিস হারায়, Deliberately. এর ভিতরে লজ্জাটা ও আছে। তাই লজ্জার দুরসম্পর্কীয় আত্বীয় Embarrassment সে নাও হতে পারে।
      Moreover, Its not something offensive. Rather something psychological piece of information could be useful to her.

  • Anonymous says:

    প্রথম কথা অত অফেন্সিভ না হলেও পরের টা কিন্তু একটু হয়েই গেল !!
    ব্যাপার নাহ অবশ্য । এ দেশে আমরা যে যার মতবাদ নিয়েই চলি ।
    ঠিক কিংবা ভুলের বিবেচনা – তাও বেছে নেই প্রয়োজন অনুসারে !

    • Fida Hasan says:

      So far I know, there is a proverb in MBBS which the first thing students need to memorize (!) there in BD.
      লজ্জা, ঘৃনা আর ভয়
      এই তিন নয়।

  • Anonymous says:

    একজন পুরুষ ডাক্তার যদি মহিলা রোগী কিংবা মহিলা ডাক্তার পুরুষ রোগী চিকিৎসা করতে লজ্জা পায় তাহলে রোগী অবশ্যই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। সেটা কি আমরা কেউ চাই ??
    ঘৃণা করলে তো রোগী ছোয়াই সম্ভব না । রোগগ্রস্ত অবস্থায় একজন মানুষ যেমন অসহায় তেমনি অপরিষ্কার ও । পচা গলা দেহের অংশ তাঁকে ব্যাথা দিচ্ছে , আর সেটা থেকে মুক্তি কেবল ডাক্তারই দিতে পারে সব ঘৃণা ভুলে । আর ভয় !!
    মেডিকেলে ভর্তি হওয়া থেকে বাকিটা জীবনের প্রতি দিন ই মৃত্যুর কষ্ট দেখতে হয়… মৃত কোন লাশের পোস্ট মরটেম করতে হয় । ভয় থাকলে টা সম্ভম নয় ।

    কিন্তু বিষয় টা তো প্রফেশনাল ফীল্ড এ । একজন ব্যক্তি হিসেবে লজ্জা , ঘৃণিত বিষয় কে ঘৃণা , ভয়ের বিষয় কে ভয় তো তারা পায় ই । মানুষ ই তো তারা ।
    কিছু নীতি বিবর্জিত মানুষের দায় ভার সমগ্র পেশাকে নষ্ট করবে কেন ? এমন মানুষ তো সব পেশার ভিতরেই আছে ।
    তা ছাড়া তাদের ক্ষেত্রে এ শব্দ গুলোর ব্যবহার এমন হলে একটু খারাপ তাদের হয়ত লাগবে ।

    • Fida Hasan says:

      হুহ্‌
      আছড় করে, আছড় করা বুঝেন?
      বাই দ্যা ওয়ে, ডাক্তার রা ডাক্তারী করুক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

 

Mountain View
নিচের Button গুলো Click করে কানেকটেড থাকতে পারো।
May 2019
S M T W T F S
« May    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031