6:55 PM | Lab qut, Kelvin Grove

প্রিয় ডায়েরী,
অস্ট্রেলিয়ায় এসে আজ প্রথম চুল কাটালাম। চিন্তা করছি চুল বড় রাখব তাই এই Attempt. যেখানে কাটাতে গেলাম ওটা কেলভিন গ্রোভেই নাম ‘বেন সিজারহ্যান্ড’। ঢুকার পরই দেখি খুব আলিসান ব্যবস্থা, সোফায় বসে বেন তার গেস্টদের সাথে চা খাচ্ছে। আমি একটু অপ্রস্তুত হয়ে দরজার দিকে তাকিয়ে দেখছিলাম সিডিউলটা। হঠাৎ করেই ভিতর থেকে বাজখাই গলায় শুনতে পেলাম আমাকে বলছে, Closing time Mate. বলেই খিক খিক হাসি সব গুলা একসাথে।
হেসে বললাম Really?
প্রতি উত্তরে বললো কিডিং, হ্যাব এ সিট।
ওদের পাশে সোফায় গিয়ে বসতে হলো। ওদের চা খাওয়া শেষ হবে তারপরই বোধহয় আমার চুল কাটবে। বসে বসে ওদের গল্প শুনছিলাম, মাঝে মাঝে টুকটাক এটেন্ড করছিলাম। হঠাৎ করেই একজন বলে উঠলো, Let’s go, and tell me how you wanna cut your hair? এমন একটা ভাব যে ও এখন আমার চুল কাটবে। কিন্তু বসেই আমি ফিগার আউট করে ফেলেছিলাম, বেন টা কে হতে পারে। সো, হা হা, এবার আমার হাসার পালা।
এবার বেন আমাকে জিজ্ঞাসা করলো, কোন মুডে কাটবো তোমার চুল? গুড মুড অর Hurry মুড?
আমি জিজ্ঞাসা করলাম, How do they different?
বেন হেসে দিয়ে বললো, আমাকে যদি একটা সিগারেট খাওয়ার সময় দাও তাহলে আমি গুড মুডে তোমার চুল কাটবো আর যদি না দাও তাহলে তাড়াতাড়ি কাটবো, বলে হাসতে শুরু করলো। আমিও হেসে দিলাম।
এরপর সে বললো, ঠিক এরকমই একটা প্রশ্ন নাকি সে কাকে করেছিলো উত্তর এসেছিলো, কোনটার মুল্য কত? হা হা…
অস্ট্রেলিয়াতে চুল কাটানোটা অন্য কিছু থেকে তুলনা মুলক এক্সপেন্সিভ। বাসমতি চালের কেজি যেখানে ২ ডলার, ১ ডলারে ভালো মানের চাল পাওয়া যায় সেখানে নরমাল চুল কাটাতে ৩০ ডলার চার্জ করে। এটা বেড়ে ১০০ ডলারও হয় নাকি…! অবশ্য বেশ কিছু চাইনিজ শপ আছে যেখানে ১০ ডলারে চুল কাটানো যায়। ওই জায়গা গুলো কিন্তু চাইনিজ, ইন্ডিয়ান কিংবা বাংলাদেশিদের কাছে বেশ পপুলার। একে তো ১০ ডলার তার উপর চুল নাকি মেয়েরা কাটে…! LOL

অস্ট্রেলিয়াতে কাজকে শ্রেনীবিভাগ করা হয় না। সব কাজকেই মর্যাদা দেওয়া হয়। তবে যে বেশি আর্ন করে সে বেশি মর্যাদা পাবে, এই স্বাভাবিক রীতিটা এখানে আছে। তবে সেই মর্যাদা কখনোই অন্যের হুজুর হুজুর এটেনশন নয়, ব্যবহার সব সময়ই একই রকম হয়। এখানে, এই কাজ লোয়ার, সেই কাজ আপার এই সব আপস্‌ ডাউন্‌ নেই। আমি আমার অফিসে দেখেছি, এক হ্যান্ডসাম অজি বসে বসে কার্পেট পরিস্কার করছে। ও পরিস্কার করছে, আমরা হেটে যাচ্ছি, ও আবার করছে। সো, সুইপার হিসাবে যে তাকে অবমুল্যায়ন করবো তা শুধু আমার মাথাতেই ছিলো, অন্যদের না। আমার মনে আছে তখন আমি চিন্তা করছিলাম, How this is looking, though this is my country and I am doing this odd job…! এভাবে চিন্তা করে ওর জন্যই আমার কস্ট হচ্ছিলো। কিন্তু এধরনের চিন্তা ওদের করতে শেখানো হয় নি তাই সে ওভাবে না ভেবে কাজটা করে যাচ্ছে।

এক বাংলাদেশীর কাছ থেকে গল্পটা শোনা, তার বাড়িওয়ালা মাঝে মাঝেই এসে নাকি তার সাথে গল্প করতো। বাড়িওয়ালা বেজায় বড়লোক, মানে ওনেক টাকা পয়সার মালিক।
তো, সে এসে একদিন জিজ্ঞাসা করছে, তুমি কি পড়ো? উত্তরে সে বলেছিলো, আমি পি এইচ ডি করছি।
বাড়িওয়ালা তখন তাকে বলেছিলো, তুমি পি এইচ ডি পড়ে কি করবে, তার থেকে তুমি প্লাম্বিং (Plumbing) পড়। তাহলে অনেক টাকা আর্ন করতে পারবে। হা হা হা। (প্লাম্বার রা বাসার পানি চলচল বা ড্রেনেজ এর কাজ করে, ইন্সলেশন ফিটিং। এটা এখানে বেশ রেয়ার আর হাই আর্নিং জব…!)
আসলে ওই বাড়ি ওয়ালা নিজেই একজন প্লাম্বার। তাই সে পি এইচ ডি বোঝে না ইভেন পি এইচ ডি -র জন্য ওই অর্থে কোন জব এখানে নেই। কে কাজ জানে, কার কত এক্সপিরিয়েন্স ওই কাজে সেটা ইম্পর্টেন্ট। আর কত কাজ করতে পারা যাবে টাকা আর্নে সেটাই আসল। তাই অস্ট্রেলিয়াতে আসলেই প্লাম্বারদের অনেক টাকা।

Dear Diary,
Today is 20th February. A very remembering date in my life. In 2010, on that date the eternity clinched a  living shadow from my life. A shadow that bestowed love and nurtured me, that has not only descendent me but also patronized me to be. My father. Thought I hurt to remember that day, but I will remember that day to get hurt. We were so callous and a brave but sad heart just leave us concealed. I still feel, I could do lot of things to prolong that day to come, to withstand that gravy event to come for a while. But I didn’t. Oh..I didn’t. And eventually that cost high, too high.
I have some supernatural thing with my father. I wanted to share with someone who can explain.
I have lost my two dearest ones in that day. My Grandma also leave us on 20th February 1998. That was first death of my family. Still have that feelings, snaps in my mind.

Death is like every others usual happening in life, but also very singular in individual life. How things are relative around us…How….!!
dad666c03ed111e3af4222000ab5b9d9_8

  

FB তে মন্তব্য করতে এখানে লিখুন (ব্লগে করতে নিচে) :

2 Responses to Shadowy

  • Anonymous says:

    Don’t worry and don’t be so sad… May be This is not the end …
    Wish you will get another chance to meet him ( Your Father, If really there is another life after death,) to grab him again and say sorry , and yes don’t miss the chance to say how much you love him…!! You have supernatural thing with your father.. so, try to build that connection with him, you are his part , so hope that you will find him on you. Best of luck.
    ( We all are human being , we can not avoid this most unwanted loss of us , if we remain alive , wish you to get that strength to bear that sorrow ness )

    • Fida Hasan says:

      May be…Not the END…!
      Once I used to feel him, the GOD..! Now, he is in threatened…! Why? You know, what I have found…! This is because of the ambient, the surrounding, the Nature. As nature has changed, things altered. So, the NATURE is nurturing us. Donno…!!!!

      Apart from any causalities, half of my life have already been gone. What I have learned is not enough to know him, to catch him. Then how he become omnipotent and justice to everyone equally? You know what, what I have found…! People have freedom as the god/goddess have..!

      I donno whether I would get any chance to meet him again, but I also know he used to possess insight. He was the one who loved me most, I knew that. He may be expected some sort of cover from me, which I didn’t offer him at that time. He send me message, send me solitary. I got his message but I ignored. How unborn I am…! I didn’t repay his care, his affection.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

 

Mountain View
নিচের Button গুলো Click করে কানেকটেড থাকতে পারো।
March 2019
S M T W T F S
« May    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31